কোলেস্টেরল নিয়ে জানা অজানা তথ্য

September 2, 2021

ব্লাড এ কোলেস্টেরল এর মাত্রা বৃদ্ধি হার্ট ডিজিজ এর পিছনে অন্যতম কারণ।


কোলেস্টেরল এক ধরনের চর্বি,  আমাদের দেহের হরমোন, ভিটামিন -ডি উৎপাদনে ও স্বাভাবিকভাবে কাজ করতে কোলেস্টেরল প্রয়োজন কিন্তু যখন কোলেস্টেরল এর মাত্রা বেড়ে যায় তখন ধমনীগুলোতে জমা হয়ে হার্ট ডিজিজ এর সম্ভাবনা বাড়ে।


প্রাপ্তবয়স্কদের ২০ বছর বয়স থেকে ৪/৫ বছর অন্তর অন্তর কোলেস্টেরল মাত্রা পরীক্ষা করা প্র‍য়োজন এবং বয়স যখন ২৬/২৭ পার করবে তখন ১/১.৫ বছর অন্তর অন্তর ফুল বডি চেকআপ করা বাঞ্ছনীয়।


দেহে স্বাস্থ্যকর কোষ তৈরির জন্য কোলেস্টেরল প্রয়োজন 

রেড মিট (গরু, ছাগল, মহিষের মাংস)

চর্বিযুক্ত দুধ ( চর্বিযুক্ত যেকোন দুধ ও দুধের তৈরি খাবার)

বেকড কুকিজ এবং ক্র্যাকার

মাইক্রোওয়েভ পপকর্নে 


বিভিন্ন ট্রান্সফ্যাট অতিরিক্ত গ্রহণ কোলেস্টেরল এর মাত্রা বৃদ্ধির করে। বিভিন্ন ধরণের কোলেস্টেরল রয়েছে লাইপোপ্রোটিন বহনকারী কোলেস্টেরলগুলো -


#LDL এলডিএল বা "খারাপ" কোলেস্টেরল আপনার সারা শরীরে কোলেস্টেরলের কণা পরিবহন করে, এই কোলেস্টেরল আপনার ধমনীর দেওয়ালে তৈরি করে।


#HDL  এইচডিএল বা "ভাল" কোলেস্টেরল আপনার লিভারে ফিরিয়ে নিয়ে যায়।


খাদ্যভাস এর পাশাপাশি কোলেস্টেরল এর মাত্রা বৃদ্ধির পিছনে আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ কারণ রয়েছে 


১. অতিরিক্ত ওজন 

২. শারীরিক পরিশ্রম না করা ( ব্যায়াম)

৩. বয়স ( লিভারের মেকানিজমে পরিবর্তন আসে) 

৪. ধুমপান ( অতিরিক্ত এলকোহল গ্রহন)

৫. ডায়াবেটিস (মারাত্মক অবস্থায় VLDL মাত্রা বাড়িয়ে দেয় HDL কমে আসে)


কোলেস্টেরল এর মাত্রা নিয়ন্ত্রণ রেখে চেস্ট পেইন, স্ট্রোক, হার্ট অ্যাটাক এর ঝুঁকি কমানোর জন্য 

- বি.এম.আই এর নির্ধারিত ওজন বহাল রাখা

-প্রতিদিন কম লবণযুক্ত খাবার গ্রহণ, ফল ও সবজির পরিমাণ বাড়ানো। 

- প্রাণীজ প্রোটিন গুলো গ্রহণের সময় ফ্যাট মডারেশনে করে গ্রহণ করা। 


প্রতিটি অরগান ভিন্ন ভিন্ন ভাবে কাজ করে। ওজন বৃদ্ধি মানেই অরগানগুলোর কার্যক্ষমতায় বিঘ্নতা তাই ওজন খুব সহজে বাড়ে এ ধরনের খাবার এবং অভ্যাস এড়িয়ে চলুন।


Most. Nourin Mahfuj

Fitness Nutrition Specialist 

Bio-xin Fitness solution

related_post

Back to top