স্কিনকেয়ার রুটিনে মোস্ট ইম্পরট্যান্ট সানব্লক এর A-Z

আমরা সবাই জানি যে ঘরের বাইরে যাওয়ার আগে সানস্ক্রিন/সানব্লক লাগানো কতটা গুরুত্বপূর্ণ। তবে আপনি কি এটা জানেন যে, ঘরের ভিতরে থাকাকালীন সময়েও সানব্লক লাগানো কতটা Important !

অথবা জানেন কি প্রতি দুই ঘন্টা অন্তর সানব্লক রিএ্যাপ্লাই করা কতটা জরুরি ? এমনকি রান্না করতে যাবার আগে ! 

সানব্লক/সানস্ক্রিন নিয়ে প্রচলিত হাজারো লজিক্যাল ও ইলজিক্যাল কথার মধ্যে বিশ্বসেরা ডার্মাটলজিস্টদের মতামত নিয়ে হাজির হয়েছি আজ।

১। ঘরে থাকুন বা বাইরে, ইউভি প্রোটেকশন সবসময়, সব জায়গায় মাস্ট ! প্রতিদিনের করনামচায় আমরা প্রায়শই ভুলে যাই যে সানলাইটের মতন UV রেইসও সবখানেই পৌঁছে যায়। এমনকি গ্লাস ভেদ করেও। সাথে আসে সানড্যামেজ। তাই ঘরে বাইরে যখনই আপনি দীর্ঘসময় ধরে সূর্যের আলোতে যাবেন, সানব্লক লাগাতে হবেই। এর বিকল্প নেই।

২। ৩০ মিনিট রুল ! রোদে যাবার ১৫-৩০ মিনিট আগে অবশ্যই সানব্লক লাগিয়ে নিতে হবে। মুখের মতন শরীরের অন্যান্য এক্সপোজড জায়গাতেও লাগাতে হবে। সানস্ক্রিন/সানব্লক পুরো মুখের সাথে সাথে কানেও লাগাতে হবে। সাথে গলা, হাত ও পায়ের পাতা। মোটকথা শরীরের যেই অংশ কাপড়ে ঢাকা নেই সেখানেই সানব্লক লাগাতে হবে।

৩। প্রতি দু’ঘন্টায় রিএপ্লাই ! নিয়মত, সানস্ক্রিন প্রতি দুই ঘন্টা বাদেই রিএপ্লাই করা উচিত। ঘামালে বা পানিতে গেলে আরও ঘন ঘন রিএপ্লাই করা উচিত। আর বেস্ট অপশন হলো বাসা থেকে বের হবার আগেই সানব্লক লাগানো। এ সময় ডিসট্র্যাকশন কম থাকে ফলে শরীরের সব এক্সপোজড জায়গায় ঠিকমত সানব্লক প্রোটেকশন নিশ্চিত করা যায়।

৪। ম্যাজিক নম্বর 30 ! ডার্মাটলজিস্টরা সবসময় সাজেস্ট করেন SPF 30 বা তার বেশি। ক্লিনিক্যালি সূর্যরশ্মির ক্ষতিকারক প্রভাব এড়াতে SPF 30 যথেস্ট। এর বেশি SPF যে খুব বেশি আর প্রোটেকশন দিতে পারে তা কিন্তু নয়! আর ২ ঘন্টার বেশি সময় ধরে এক্সপোজড থাকলে রিএপ্লিকেশন মাস্ট। কিন্তু ডেইলি বেসিস এ আমরা রিএপ্লাই সাধারণত করি না। তাই SPF 30 বা তারও বেশি ব্যবহারের মাধ্যমে প্রথমবার ব্যবহারেই সর্বোচ্চ সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে।

৫। ডার্মাটলজিস্টদের প্রথম পছন্দ মিনারেল বেজড সানস্ক্রিন সাধারণত প্রচলিত সব সানব্লকই ক্যামিকেল বেজড যা পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক। তাই এখন ডারমাটলজিস্টদের সাজেশন জিংক ও টাইটানিয়াম সমৃদ্ধ মিনারেল সানব্লক। এটি স্কিন এর উপরিভাগ থেকেই সূর্যরশ্মিকে প্রতিফলিত করে দেয় যেখানে ক্যামিকেল সানস্ক্রিন সূর্যরশ্মি শোষণ করে সেটাকে তাপে পরিণত করে। মিনারেল বেজড সানস্ক্রিন তাই সেনসিটিভ ত্বকেও বেশ স্যুটেবল

৬।আপনার পরিধানও দিতে পারে রোদ থেকে সুরক্ষা। সূর্যের ক্ষতিকারক রশ্মি থেকে সুরক্ষায় ফুল হাতা স্লিভ, সানগ্লাস, হ্যাট বা ছাতার ভূমিকা অনবদ্য। বিশ্বের অনেক দেশে আজকাল ইউভি রেসিস্টেন্ট কাপড় ও তৈরি হচ্ছে।

৭। ঠোঁটের কথা ভুলে গেলে চলবে না। মুখের ত্বক এমনিতেই শরীরের ত্বক থেকে পাতলা। চোখ ও ঠোঁটের ত্বক তুলনামূলক মুখের ত্বকের চাইতেও পাতলা। তাই এজিং সাইনও দেখা দেয় এই দুই জায়গায় সবার আগে। তাই ভালো করে এই দুই জায়গায় সানব্লক লাগাতে হবে।

দেখুন, এতো কিছু জানার পরেও সানব্লক ব্যবহার করতে যদি ইচ্ছে নাই করে তবে, সুন্দর স্কিন এর ইচ্ছেটাকেও জানান বাই বাই !

ভালো থাকুন, ভালো রাখুন।

Facebook Comments