ফাস্টিং এর উপকারিতা চিন্তা করেছেন???

দৈনন্দিন জীবনযাপন ও খাদ্যভাসের কারণে খুব অল্প বয়সে আমরা বিভিন্ন রোগে সংক্রমিত হচ্ছি সেই সাথে অল্প অল্প অসচেতনতা আমাদের ডায়াবেটিস, থাইরয়েড, ফ্যাটি লিভার, হার্ট ডিজিস, কিডনি ডিজিস, আর্থ্রাইটিস সহ অন্যান্য রোগের সম্ভাবনা বাড়াচ্ছে।

অনেক সময় ধরে খাবার না গ্রহণের কারনে (ফাস্টিং)

১. দেহে কোষ সংশোধন প্রকিয়া 

২. হরমোনের মাত্রা পরিবর্তন 

৩. দেহে জমাকৃত ফ্যাট ভাঙনের সহ 

দেহে বিভিন্ন কার্যক্রিয়া সম্পন্ন হয় 

 

* ফাস্টিং এর মাধ্যমে দেহে জিন সংস্কার ও জিন পরিবর্তনের দ্বারা বিভিন্ন রোগের সাথে লড়াই করা ইমিউনিটি তৈরি হয় এবং গ্রোথ হরমোনের নিঃসরনের মাত্রা বৃদ্ধির কারণে দেহের অতিরিক্ত মেদ ভেঙে ওজন কমে থাকে সেই সাথে কোষে সংস্করণ এর ফলে দেহে জমাকৃত বর্জ্যপদার্থ মুত্র ও ঘামের মাধ্যমে বের হয়ে যায়।

* ফাস্টিং এর কারনে অক্সিডেটিভ স্ট্রেস কমে ( ফ্রি রেডিকেল ও এন্টিঅক্সিডেন্টের ব্যালেন্স),  ইনফ্লামেশন দূর করে এবং সকল ধরনের ক্রনিক ডিজিজ এর ঝুঁকি কমে।

* ফাস্টিং হজম ক্ষমতা ( ডাইজেস্টিভ সিস্টেম) বাড়ায়, স্টেস দূর করে ব্রেইন এর কগনেটিভ কার্যক্ষমতা বাড়ায় এবং এজেনিং প্রসেস কমায় ও পেশীর কার্যক্ষমতা সচল রাখে।

* এখন অল্প বয়সে টাইপ-২ ডায়াবেটিস এর প্রবনতা দেখা দিচ্ছে ফাস্টিং এর দরুন ইনসুলিন হরমোনের নিঃসরনের  মাধ্যমে রক্তে গুলোজ মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে যার ফলে টাইপ-২ ডায়াবেটিস এর সম্ভাবনা কমে। 

যদি ব্যাক্তির টাইপ-২ ডায়াবেটিস থাকে তবে ফাস্টিং এর ফলে ডায়াবেটিস এর কারনে কিডনি কার্যকারিতা সচল রেখে কিডনি ডিজিজ এর সম্ভাবনা কমে।

* ফাস্টিং এর কারনে মেটাবলিজম বৃদ্ধি করে দেহে অনিয়ন্ত্রিত কোষের বৃদ্ধি কমায় যার ফলে ক্যান্সার এর ঝুঁকি কমে এবং এল ডি এল, ট্রাইগ্রিসারাইড এর মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে ফলে অল্প বয়সে হার্ট ডিজিজ এর সম্ভাবনা কমায়।

 

ফাস্টিং করুন দেহের সকল অরগাম গুলোকে ডিটক্সিফাইড করুন সুস্থ থাকুন।

 

Most. Nourin mahfuj

Fitness Nutrition Specialist

Bio-xin Fitness Solution

 

Facebook Comments