এই লকডাউনে আপনার ত্বকের যত্ন

এই পৃথিবীতে মহামারীর ইতিহাস বহু পুরানো। সৃষ্টির আদিকাল থেকেই এখানে মহামারী এসেছে প্রতিনিয়ত। বিপর্যস্ত করেছে মানব জাতির ইতিহাসকে। ইতিহাসের সবচেয়ে বড় মহামারীটি এসেছিলো ১৯১৮ সালে। একে বলা হয় স্প্যানিশ ফ্লু, প্রায় ৫০মিলিয়ন মানুষ মারা গিয়েছিলো এই ফ্লুতে। চার পাঁচ দশক আগেও বাংলাদেশে কলেরা, বসন্তও ছিলো বিরাট মহামারী। এখনও ডেঙ্গু, চিকনগুনিয়ার মত রোগও প্রায়ই আমাদের নাজেহাল করে যায়। আর সেই তুলনায় করোনা ভাইরাস তো গরীবের ঘরে হাতির পা। তাই সাবধানতার কোন বিকল্প নেই। সারা পৃথিবীতে এখন চলছে লকডাউন। সবাই ঘরে ঘরবন্ধী। সচেতন নাগরিক হিসেবে আপনাকে আমাকেও থাকতে হবে ঘরবন্ধী। তবেই প্রতিরোধ করা সম্ভব করোনা। লকডাউন নিয়ে প্রথমদিকে মানুষ অনেক রোমাঞ্চিত থাকলেও যত দিন যাচ্ছে ততই ঘরে আটকে বোর হচ্ছেন সবাই। তাই যারা ঘরে বসে আছেন এবং বোর হচ্ছেন তাদের জন্যেই এই লেখা।

লকডাউন এর মধ্যে দিয়ে যাওয়া মানেই ধৈর্যের পরীক্ষা দেয়া। এই দূর্যোগে আপনি হতাশাগ্রস্থ হতে পারেন। আপনার ওপর ভর করতে পারে রাগ ও ক্ষোভ। তাই এই  লকডাইনে আপনি যদি আপনার মুড ঠিক রাখতে চান তবে সবচেয়ে সহজ উপায় হল নিজের পরিচর্যা করা। ঘরে বসে আপনার নিজের ত্বক ও চুলের  পরিচর্যা করতে পারেন আপনি খুব সহজেই। পাঁচটি টিপস জেনে এই লকডাউনেও থাকুন উৎফুল্ল।

 

টিপস ১- থাকি একটিভ

এই লকডাউনে থাকতে হবে একটিভ।  ক্রিকেটারদের তো ঘরের কাজ করে ফিট থাকার টোটকা দিয়েছে বিভিন্ন ক্রিকেট বোর্ড। মেসি রোনালদোরা ও শারীরিক কারিকুরি করে পোস্ট দিচ্ছেন ফেসবু্‌ক, টুইটারে।  তাই আপনাকেও শারীরিক ভাবে কাজ করে একটিভ থাকার চেষ্টা করতে হবে। আপনার ত্বক আর চুল তখনই ঝলমল করবে যখন আপনি সারাদিন এক্টিভ থাকবেন। শরীর তখনি চাঙ্গা হয় যখন আপনি ঘর থেকে বের হন আর প্রচুর হাঁটাচলা এবং অনেক কাজ করেন। শরীরের মেটাবলিজম ও অনেক ভালো থাকে এর মাধ্যমে। কিন্তু এই লকডাউনে ঘরে বসে থাকায় আপনার ত্বক ও চুল খারাপ দেখাতে পারে। তাই ঘরে বসেই কিছু  ওয়ার্ক আউট করে নিতে পারেন। ইউটিউবে দেখে নিতে পারেন কিছু ওয়ার্ক আউট ভিডিও। আপনার বাসার সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করতে পারেন। এতে শরীরে রক্ত সঞ্চালন সহজ হবে যা সুন্দর ত্বক ও ভাল চুলের প্রধান নিয়ামক।

টিপস ২- নাচো তো দেখি বালা নাচো তো দেখি

আপনার নাচের অভ্যাস নাই থাকতে পারে, তবে দরজা বন্ধ করে প্রিয় গানের সাথে নিজের জন্যে একবার নেচেই দেখুন না কতখানি চাঙ্গা লাগে নিজেকে। এতে আপনার ত্বক আর চুলও ফিরে পাবে এর ঔজ্জ্বল্য।

টিপস ৩- যা ভালো লাগে তাই করি

আপনার হয়তো গান শুনতে, কিংবা গাছের পরিচর্যা করতে কিংবা গেমস খেলতে ভালো লাগে মোটকথা যেই কাজটিই আপনার করতে ভালো লাগে সেটি সকালে, দুপুরে এবং সন্ধ্যায় নিয়ম করে করুন। মন ভালো তো শরীর ও ভালো।

টিপস ৪- খাই ন্যাচারাল ফুডস

সব ধরনের প্যাকেটজাত প্রসেসড ফুড এড়িয়ে চলতে হবে। প্রসেসড ফুডগুলো কখনোই স্কিনের জন্যে ভালো না। শরীর ও ত্বকের ওপর এর বাজে প্রভাব এড়াতে প্রসেসড ফুড খাবেন না। ফলের জুস কিংবা ডাবের পানি খেতে পারেন। সবুজ শাক সবজী খান। তেল মশলা কম, এমন খাবার খান। আপনার ত্বক তবেই হবে আরো উজ্জীবিত।

টিপস ৫- স্ট্রেস এড়িয়ে চলি

এই লকডাউনে চাঙ্গা থাকতে হলে স্ট্রেস এড়িয়ে চলতে হবে। স্কিন নষ্ট হওয়ার অন্যতম কারন কিন্তু এই মেন্টাল স্ট্রেস বা মানসিক ধকল। ফেসবুকে কিংবা অনলাইন নিউজ পোর্টালে করোনা আক্রান্তদের খবর পড়ে যদি আপনার মানসিক অশান্তি হয় তবে সামাজিক মাধ্যমগুলো এড়িয়ে চলুন। যা হওয়ার তা তো হবেই ! আপনি যদি আক্রান্ত হওয়ার আগেই ভেঙ্গে পরেন তবে ভাইরাস আপনাকে কাবু করবে সহজেই। মানসিক ভাবে তাই শক্ত থাকুন। মানসিক ধকল এড়াতে আপনার সঙ্গীর সাহায্য নিন। মনে করুন কোন ফেলে আসা বিকেলের ক্ষণকে। অথবা এই দূর্যোগ কাটিয়ে উঠলে কোথায় কোথায় ঘুরতে যাবেন তাঁর খুটিনাটি বিশ্লেষন করতে পারেন গুগল ঘেঁটে।

যারা এই পাঁচটি টিপস পড়েই ফেলেছেন তাদের জন্যে এবার ফ্রী দিচ্ছি দুটো খুবই সহজ ঘরোয়া স্কিন কেয়ারের টোটকা। পড়ে ফেলুন এবং এপ্লাই করুন নিজের এবং প্রিয়জনের ওপর।

 

ফেসপ্যাক নাকি আইসপ্যাক?

প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে ফেসপ্যাক বানিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। ঘরে বসে শসা টমেটো বা আলু দিয়ে বানিয়ে ফেলতে পারেন একটি সহজ ফেসপ্যাক। আলু, শসা, টমেটো ধুয়ে পরিষ্কার করে কেটে গ্রাইন্ডারে আলাদা করে গ্রাইন্ড করে নিতে হবে। ব্যাস হয়ে গেল আপনার ফেসপ্যাক। চাইলে  ডিপ ফ্রিজে  আইস ট্রে তে রেখে কোল্ড ফেসপ্যাকও বানিয়ে ফেলতে পারেন এই মিশ্রণগুলিকে। সকালে কাজ শুরুর আগে যেকোনো একটি ফেসপ্যাক ব্যবহার করতে হবে। একটি আইস ট্রেতে আপনি আপনার পরিবারের সারা সপ্তাহের ফেসপ্যাকের ব্যবস্থা করে ফেলতে পারবেন। এই সুপার আইস প্যাকে আপনার ত্বক গ্লো করবেই।

 

ডেড স্কিন দূর করা তবে এত সহজ?

ত্বকের ডেড স্কিন দূর করতে পারেন এই লকডাউনে। ব্যবহার করতে পারেন চিনি আর মধুর মিশ্রণ। চিনি আপনার স্কিন খুব ভালো করে এক্সফোলিয়েট করে। আর এর সঙ্গে মধু থাকলে স্কিন হয় ময়েশ্চারাইজড। অক্সিডেটিভ ড্যামেজ থেকেও স্কিন ভালো থাকে। আপনি এটি আপনার সব এক্সপোজড এরিয়ায় ব্যবহার করতে পারেন। মিশ্রণটি তৈরী করে রাউন্ড মোশনে স্কিনে ম্যাসাজ করুন। এতে ডেড স্কিন দূর হবে ত্বকের ব্লাড সার্কুলেশনটাও হবে দুর্দান্ত। ত্বক হবে আরো উজ্জ্বল, তারূণ্যদীপ্ত আর লাবণ্যময়।

 

সর্বোপরি  ঘরে থাকুন আর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন এর দেয়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।  শারীরিক দুরত্ব বজায় রাখুন বাইরের মানুষদের সাথে। এই দুঃসময়ের মেঘ দ্রুত কাটবে একমাত্র আপনি আর আমি যদি ঘরে থাকি তবেই। ঘরে বসে নামাজ পড়তে পারেন অথবা প্রার্থনা করতে পারেন এই দুঃসময় থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্যে। সারকথা হল, যা করে আপনার মন হালকা থাকে তাই করুন প্রাণখুলে। ভালো থাকুক আপনি ও আপনার প্রিয়জন। ভালো থাকুক আপনার ত্বক।

Facebook Comments